আনন্দধারা

শাওনকে নিয়ে মন্তব্যের পর ক্ষমা চাইলেন বান্টি মির

মেহের আফরোজ শাওনের সাধারণ ডায়েরির (জিডি) পর নিজের মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন ভ্লগার (ভিডিও ব্লগার) বান্টি মির। ‘ডুব বিতর্ক’ নিয়ে শাওনের সমালোচনা করে বান্টি ভিডিও বক্তব্য দেওয়ার পর গতকাল বিকালে ধানমন্ডি থানায় জিডি করেছিলেন শাওন।

মেহের আফরোজ শাওনের সাধারণ ডায়েরির (জিডি) পর নিজের মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন ভ্লগার (ভিডিও ব্লগার) বান্টি মির। ‘ডুব বিতর্ক’ নিয়ে শাওনের সমালোচনা করে বান্টি ভিডিও বক্তব্য দেওয়ার পর গতকাল বিকালে ধানমন্ডি থানায় জিডি করেছিলেন শাওন।

বর্তমানে নিউইয়র্কে অবস্থানরত বান্টি তার ফেসবুক ওয়ালে লিখেছেন, “মাফ করেন আমাকে সবাই। অনেক গালি খেয়েছি। মাফ করে দেন… আর গালি দিবেন না। আল্লাহ আমাকে মাফ করুক।”

এর আগে এক পোস্টে বান্টি লিখেন, “মানুষের গোপন কথা বলতে নেই, আর আমি সেটাই করেছি। জানি না আল্লাহ আমাকে ক্ষমা করবে কিনা। আল্লাহ তার দয়ায় আমাকে ক্ষমা করুক- আমিন।”

তবে ডুব ছবির গল্প নিয়ে শাওনের উদ্বেগের বিষয়ে বান্টির কটু মন্তব্য ব্যপকভাবে সমালোচিত হয়েছে। শাওন মনে করেন, পরিচালক মোস্তফা সারোয়ার ফারুকি লেখক হুমায়ুন আহমেদের জীবনের কিছু ঘটনাকে অবলম্বন করে ছবিটি নির্মাণ করছেন।

ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ জানান, জিডিতে শাওন অভিযোগ করেছেন ফেসবুক ও ইউটিউবের মত সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শাওনের বিরুদ্ধে অশালীন, মিথ্যা ও ভিত্তিহীন শব্দ ও গুজব ছড়িয়ে বান্টি মির তার সম্মানহানি করেছেন।

এর আগে শাওন ছবিটিকে ছাড়পত্র না দিতে সেন্সর বোর্ডের কাছে অনুরোধ করেন। শাওনের আশঙ্কা ছবিটিতে হুমায়ুন আহমেদকে ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়ে থাকতে পারে। গত ১৩ ফেব্রুয়ারি চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের কাছে লিখিতভাবে নিজের উদ্বগের কথা জানান তিনি।

শাওনের অভিযোগ আমলে নিয়ে ডুব ছবিটিকে ছাড়পত্র দেওয়ার এক দিনের মাথায় ১৬ ফেব্রুয়ারি তা প্রত্যাহার করা হয়। সাময়িকভাবে ছবিটির মুক্তি বন্ধ রাখতে তথ্যমন্ত্রণালয় থেকেও বিএফডিসিকে বলা হয়। এর ফলে মুক্তি নিয়ে অনিশ্চয়তায় পড়ে ডুব। আগামী এপ্রিল মাসে এর মুক্তি পাওয়ার কথা ছিলো।

Click here to read the English version of this news

Comments