ফ্যাশন ও সৌন্দর্য

পূজায় সাজ

কপালে টিপ, চোখে কাজল, একটু লিপস্টিক সঙ্গে নতুন হালকা কাজের শাড়ি, কুর্তি কিংবা সেলাওয়ার কামিজ- এই সাজ নিয়ে পূজোর সকালটা কাটিয়ে দিতে পারেন।
ছবি: সাজ্জাদ ইবনে সাঈদ/স্টার

কপালে টিপ, চোখে কাজল, একটু লিপস্টিক সঙ্গে নতুন হালকা কাজের শাড়ি, কুর্তি কিংবা সেলাওয়ার কামিজ- এই সাজ নিয়ে পূজোর সকালটা কাটিয়ে দিতে পারেন।

তবে রাতের সাজের মেকআপ হওয়া চাই আরেকটু ভারি। উৎসবের দিনগুলোতে নিজেকে আরেকটু স্পেশাল করে তুলতে চাইলে মেকআপের জুড়ি নেই।

ছবি: সাজ্জাদ ইবনে সাঈদ/স্টার

কেমন হতে পারে পূজোর মেকআপ তা নিয়ে জানিয়েছেন মেকআপ আর্টিস্ট ফারহানাজ মারিয়া। তিনি বলেন, 'মেকআপের ক্ষেত্রে দরকার শৈলী, ধৈর্য্য ও সঠিক পদ্ধতি। বিশেষত বেইজ মেকআপ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। মেকআপ করার পর আপনাকে কতটা সুন্দর দেখাবে, তার অনেকটাই নির্ভর করবে বেইজের ওপর। পূজার দিনগুলোতে মেকআপ নিজেই করতে চাইলে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় মেনে চলতে হবে।'

ছবি: সাজ্জাদ ইবনে সাঈদ/স্টার

১. মেকআপ শুরু করার আগে ভালো করে মুখ পরিষ্কার করে নিতে হবে। ত্বক অনুযায়ী বেছে মাইল্ড ফেশ ওয়াশ নির্বাচন করা জরুরি। চাইলে হালকা করে স্ক্রাবও করে নেওয়া যেতে পারে।

২. যদি শুষ্ক ত্বক হয়ে থাকে, তাহলে অনেক সময় মেকআপ ত্বকের সাথে মিশতে চায় না। তাই মসৃণভাবে মেকআপ করার জন্য, ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখা জরুরি। ত্বক শুষ্ক হলে ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিতে হবে। আবার ত্বক যদি অতিরিক্ত তৈলাক্ত হয়ে থাকে তাহলে টোনার ব্যবহার করতে হবে।

৩. প্রাইমার লাগিয়ে নিতে হবে। প্রাইমার মুখের ওপেন পোরস ভরাট করে ফেলে, এতে ত্বক মসৃণ দেখায় এবং মেক আপও স্থায়ী হয়।

৪. চোখের নিচের কালো দাগ, পিগমেন্টেশন এর ওপর কনসিলার লাগিয়ে ভালোভাবে বসিয়ে নিতে হবে।

৫. এরপর ত্বকের রঙের সঙ্গে মানিয়ে ফাউন্ডেশন লাগিয়ে নিতে হবে।

ছবি: সাজ্জাদ ইবনে সাঈদ/স্টার

৬. সেটিং পাউডার দিয়ে মেকআপ সেট করে নেওয়ার পর কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে অতিরিক্ত পাউডার ঝেড়ে ফেলে দিতে হবে।

৭. চোখের অংশটি হাত দিয়ে ঢেকে রেখে, সেটিং স্প্রে দিয়ে মেকআপ সেট করে নিতে হবে। সেটিং মিস্ট শুকিয়ে আসলে হাইলাইটার ও পছন্দ অনুযায়ী ব্লাশন লাগিয়ে নিতে হবে।

Comments