অপরাধ ও বিচার

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় চার্জ গঠন শুনানি ১৬ অক্টোবর পর্যন্ত মুলতবি

গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ ১৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ১৬ অক্টোবর পর্যন্ত মুলতবি করেছেন আদালত।
খালেদা জিয়া
বেগম খালেদা জিয়া। ফাইল ফটো

গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ ১৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ১৬ অক্টোবর পর্যন্ত মুলতবি করেছেন আদালত।

আজ বুধবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৩ এর বিচারক মুহাম্মদ আলী হোসেন এ আদেশ দেন।

খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে তার আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার শুনানি মুলতবি চেয়ে আবেদন করলে আদালত এ আদেশ দেন। 

খালেদা জিয়া এখন অসুস্থ উল্লেখ করে আদালতে তিনি বলেন, সরকারের নির্বাহী আদেশে কারাগার থেকে বের হওয়ার পর তিনি এখন গুলশানের বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছেন।

এই নিয়ে এই মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানির তারিখ ৪২ বার পেছানো হলো।

এর আগে গত ২৪ জুলাই মামলার অপর ৩ আসামিকে মামলা থেকে অব্যাহতি দিতে প্রয়োজনীয় দলিলাদি দাখিল করা হয়।

তারা হলেন-চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের (চবক) সাবেক চেয়ারম্যান এয়ার কমডোর জুলফিকার আলী, সাবেক চবক সদস্য এ কে রশিদ উদ্দিন আহমেদ এবং সাবেক বন্দর পরিচালক (পরিবহন) এ এম সানোয়ার হোসেন। 

এ মামলায় জামিনে থাকা বিএনপি নেতা খন্দকার মোশাররফ হোসেনসহ ১৪ আসামি আজ আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

২০০৭ সালের ২ সেপ্টেম্বর দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপপরিচালক গোলাম শাহরিয়ার চৌধুরী ৪ দলীয় জোট সরকারের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া, তার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় এ মামলা করেন। মামলার পরদিন খালেদা জিয়া ও কোকোকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ওই বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর মামলাটি অন্তর্ভুক্ত করা হয় জরুরি ক্ষমতা আইনে। পরের বছর ১৩ মে খালেদা জিয়াসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে এ মামলায় অভিযোগপত্র জমা দেওয়া হয়।

মামলার অভিযোগপত্রে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান গ্যাটকোকে ঢাকার কমলাপুর আইসিডি ও চট্টগ্রাম বন্দরের কনটেইনার হ্যান্ডলিংয়ের কাজ পাইয়ে দিয়ে রাষ্ট্রের ১৪ কোটি ৫৬ লাখ ৩৭ হাজার ৬১৬ টাকার ক্ষতি করেছেন।

মামলার ২৪ আসামির মধ্যে ৫ জন ইতোমধ্যে মারা গেছেন এবং একজনের যুদ্ধাপরাধ মামলায় ফাঁসি কার্যকর হয়। তারা হলেন—সাবেক মন্ত্রী এম সাইফুর রহমান, আব্দুল মান্নান ভূঁইয়া, এম কে আনোয়ার, জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমির মতিউর রহমান নিজামী, চট্টগ্রাম বন্দরের প্রধান অর্থ ও হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আহমেদ আবুল কাশেম ও বিএনপি চেয়ারপারসনের ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকো।

অন্য আসামিরা হলেন—বিএনপির সাবেক মন্ত্রী এম শামছুল ইসলাম, সাবেক জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী এ কে এম মোশাররফ হোসেন, সাবেক মন্ত্রী ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, প্রয়াত মন্ত্রী কর্নেল (অব.) আকবর হোসেনের স্ত্রী জাহানারা আকবর, ২ ছেলে ইসমাইল হোসেন সায়মন এবং এ কে এম মুসা কাজল, এহসান ইউসুফ, সাবেক নৌ সচিব জুলফিকার হায়দার চৌধুরী, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের (চবক) সাবেক সদস্য এ কে রশিদ উদ্দিন আহমেদ, গ্লোবাল অ্যাগ্রোট্রেড প্রাইভেট লিমিটেডের (গ্যাটকো) পরিচালক শাহজাহান এম হাসিব, গ্যাটকোর পরিচালক সৈয়দ তানভীর আহমেদ ও সৈয়দ গালিব আহমেদ, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান এ এস এম শাহাদত হোসেন, বন্দরের সাবেক পরিচালক (পরিবহন) এ এম সানোয়ার হোসেন এবং বন্দরের সাবেক সদস্য লুৎফুল কবীর।

Comments

The Daily Star  | English
Benazir Ahmed corruption scandal

An IGP’s eye-watering corruption takes the lid off patronage politics

Many of Benazir Ahmed's public statements since assuming high office aligned more with the ruling party's political stance than with the neutral stance expected of a civil servant.

5h ago