রংপুর সিটি নির্বাচন: প্রচারণা-গণসংযোগে প্রার্থীদের ব্যস্ত সময়

আগামী ২৭ ডিসেম্বর রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তারিখ। গত ৯ ডিসেম্বর প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়। আর সেদিন থেকেই প্রচার-প্রচারণা শুরু করেছেন প্রার্থীরা।
রংপুর সিটি নির্বাচন
রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখে জাতীয় পার্টির প্রার্থী ও সদ্য বিদায়ী মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা (বামে) এবং আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়ার (ডানে) প্রচারণা-গণসংযোগ। ছবি: সংগৃহীত

আগামী ২৭ ডিসেম্বর রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তারিখ। গত ৯ ডিসেম্বর প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়। আর সেদিন থেকেই প্রচার-প্রচারণা শুরু করেছেন প্রার্থীরা।

দিনভর গণসংযোগ আর পথসভায় ব্যস্ত প্রার্থীরা উন্নয়নের বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি নিয়ে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ছুটছেন। মেয়র প্রার্থীদের সঙ্গে সমান তালে প্রচারণা চালাচ্ছেন কাউন্সিলর প্রার্থীরাও।

নগরীর দেয়ালে দেয়ালে সাঁটানো হচ্ছে পোস্টার। গানের ছন্দে আর স্লোগানে-স্লোগানে মুখরিত রংপুর নগরী।

গতকাল সোমবার নগরীর উত্তরে কুকরুল মোড় থেকে প্রচারণা শুরু করেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী ও সদ্য বিদায়ী মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা। পরে বুড়াইল, জুম্মাপাড়াসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন তিনি।

প্রচারণায় অংশ নিয়ে মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলেন, 'আমি নতুন করে কিছু বলব না। গত ৫ বছর ধরে পরীক্ষা দিয়েছি আপনাদের কাছে এবং সেই পরীক্ষার খাতা এখন জনগণের হাতে। তারাই এখন পরীক্ষার নম্বর দেবেন।'

তিনি আরও বলেন, 'স্বাস্থ্যসেবা সূচকে দেশের ১২ সিটি করপোরেশনের মধ্যে রংপুর প্রথম। এ ছাড়া নগরীর রাস্তাঘাট, ড্রেন, ব্রিজসহ বেশ কিছু অবকাঠামো উন্নয়ন এই ৫ বছরেই হয়েছে।'

'ক্ষমতায় আসার পর নগরীর যে উন্নয়ন হয়েছে তার পরিপ্রেক্ষিতেই জনগণ আমাকে পুনরায় নির্বাচিত করবেন,' বলেন তিনি।

তার প্রচারণায় অংশ নেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান ও রংপুর মহানগর জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এবং নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক এস এম ইয়াসির, জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব হাজী আব্দুর রাজ্জাকসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া সেদিন সকালে নগরীর জাহাজ কোম্পানি মোড়, প্রেসক্লাব চত্বরে গণসংযোগ শেষে পূর্ব দিকে সিগারেট কোম্পানি, সাহেবগঞ্জ ও মহিশালের মোড় এলাকায় গণসংযোগ করেন।

গণসংযোগের সময় হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া বলেন, 'জাতীয় পার্টি এখন দুর্বল হয়ে পড়েছে। জনগণ তাদের সঙ্গে নেই। বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে এবার রংপুর সিটি করপোরেশনে নৌকা প্রতীকে ভোট দেবেন নগরবাসী।'

সে সময় মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তুষার কান্তি মন্ডল, সহ-সভাপতি আবুল কাশেম, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মেহেদী হাসান সিদ্দিকী রনীসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

একই সময়ে নৌকা প্রতীকের পক্ষে মাহিগঞ্জ এলাকায় প্রচারণা চালান জেলা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।

রংপুর সিটি করপোরেশনে ভোটার সংখ্যা ৪ লাখ ২৬ হাজার ৪৬৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ১২ হাজার ৩০২ জন এবং নারী ভোটার ২ লাখ ১৪ হাজার ১৬৭ জন।

মোট ২২৯টি কেন্দ্রে আগামী ২৭ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত ইভিএমে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এবার মেয়র পদে জাতীয় পার্টির মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ-ইনু) শফিয়ার রহমান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমিরুজ্জামান পিয়াল, খেলাফত মজলিশের তৌহিদুর রহমান মণ্ডল রাজু, জাকের পার্টির খোরশেদ আলম খোকন, বাংলাদেশ কংগ্রেস পার্টির আবু রায়হান এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মেহেদী হাসান বনি ও লতিফুর রহমান মিলন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।

সংরক্ষিত ১১টি ওয়ার্ডে ৬৭ জন এবং সাধারণ ৩৩টি সাধারণ ওয়ার্ডে ১৭৮ জন কাউন্সিলর প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন।

 

 

Comments