কোনো একটা দলকে জিতিয়ে দেওয়ার জন্য কমিশন কাজ করবে না: সিইসি

মিডিয়ায় ওই বক্তব্যগুলো প্রচার করা যাবে না; যে বক্তব্যগুলোতে নির্বাচন কমিশন খাটো হবে, সরকার খাটো হবে।
কোনো একটা দলকে জিতিয়ে দেওয়ার জন্য কমিশন কাজ করবে না: সিইসি
প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল | ছবি: টেলিভিশন থেকে নেওয়া

কোনো একটা দলকে জিতিয়ে দেওয়ার জন্য কমিশন কাজ করবে না বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল।

আজ বুধবার সকালে নির্বাচন ভবন সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন: প্রত্যাশা ও বাস্তবতা শীর্ষক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

জনপ্রতিনিধিত্ব আইন, ২০২৩ এর বিষয়ে সংশয় দূর করতে সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সময় নিয়ে কমিশনের সঙ্গে বসার আহ্বান জানিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, 'এটা নিয়ে যদি বুঝতে চান আপনাদের স্বাগতম। আমাদের অফিসে আপনারা আমন্ত্রিত। কারণ আপনারা প্রায়ই টক-শোতে কথা বলেন। মুশকিল হচ্ছে তখন পুরো জনগণ বিভ্রান্ত হয়ে যায়; এই নির্বাচন কমিশন তো আগেই দস্তখত করে ফেলেছে সরকারের সঙ্গে সরকারকে জিতিয়ে দেওয়ার—কোনো একটা দলকে জিতিয়ে দেওয়ার। না, সেটা একদমই সত্যি না। আমরা অতটা কাপুরুষ নই। আর অতটা নৈতিকতা বিবর্জিত এখনো হইনি অন্তত।'

'আমার মনে হয়, মিডিয়ায় ওই বক্তব্যগুলো প্রচার করা যাবে না; যে বক্তব্যগুলোতে নির্বাচন কমিশন খাটো হবে, সরকার খাটো হবে। আমি সরকারের কথা বলছি না, কেন যেন সেই বক্তব্যগুলো প্রাধান্য পেয়ে থাকে,' বলেন তিনি।

নির্বাচনের বিষয়ে সিইসি বলেন, 'পলিটিক্যাল উইল ইজ এক্সট্রিমলি ভেরি ইমপর্ট্যান্ট। নির্বাচন ভালো হবে কি না, সেটার জন্য আন্তরিক পলিটিক্যাল উইল থাকতে হবে। পলিটিক্যাল উইল আমাদের থেকে আসবে না। এটা আসবে রাজনৈতিক দল থেকে, সরকার থেকে।' 

'আমরা বারবার আহ্বান করেছি, একসাথে বসার কথা বলেছি। কিন্তু আমাদের দেশের পলিটিক্যাল কালচার এত বেশি স্প্লিটেড হয়ে আছে যে কেউ কারও সাথে বসতে চাচ্ছে না,' যোগ করেন তিনি।

তিনি বলেন, 'অনেকে অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের কথা বলেছেন এবং আমাদের জন্য নির্বাচন খুব সহজ হবে না বলেছেন। আমরা একটা কঠিন অবস্থায় আছি। এটা বিলেত বা অস্ট্রেলিয়ার নির্বাচন হতে যাচ্ছে না।'

'এখানে বিভিন্ন ধরনের সংকট আছে। সেটা আমরা বলিনি, আপনারাই বলেছেন। অনেকগুলো সংকট নিরসন করতে হবে রাজনৈতিক নেতৃত্বকে। এই কাজটি আমি বারবার বলছি, আমাদের জন্য অনুকূল পরিবেশ রাজনীতিবিদরা যদি তৈরি করে না দেন, তাহলে আমাদের জন্য নির্বাচন অনুষ্ঠান করা কষ্টসাধ্য হবে,' যোগ করেন তিনি।

সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব আলী ইমাম মজুমদার বলেন, দেশের প্রধান বিরোধী দলসহ বেশ কিছু দল বলছে যে, বর্তমান সরকারকে ক্ষমতায় রেখে তারা কোনো নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না। পাশাপাশি সরকারে যারা আসিন আছেন, ওরা বলছেন, সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। অর্থাৎ তারা ক্ষমতায় থাকবেন এবং যে সংসদ আছে, সেই সংসদও বলবৎ থাকবে। এই অবস্থায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই জিনিসটা অবশ্যই নির্বাচন কমিশনের দায়িত্বের মধ্যে পড়ে না। এটা রাজনীতিকদের সমাধান করতে হবে। সবাইকে যদি আমরা ভোট দেওয়ার সুযোগ দিতে চাই; একটা কথা বলা হয়, সত্তরের নির্বাচনেও সব দল অংশগ্রহণ করেনি।'

Comments

The Daily Star  | English

Why planting as many trees as possible may not be the solution to the climate crisis

The heatwave currently searing Bangladesh has led to renewed focus on reforestation efforts. On social media, calls to take up tree-planting drives, and even take on the challenge of creating a world record for planting trees are being peddled

30m ago