বাংলাদেশ

গুলি করে হত্যার ৪ দিন পর স্কুলশিক্ষার্থীর মরদেহ ফেরত দিলো বিএসএফ

দিনাজপুর সদর উপজেলার দাইনুর সীমান্তে গত বুধবার রাতে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে নিহত হয় বাংলাদেশি স্কুলশিক্ষার্থী মিনারুল ইসলাম মিনার (১৭)। ৪ দিন পর সোমবার বিকেলে তার মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
মিনারুল ইসলাম মিনার। ছবি: সংগৃহীত

দিনাজপুর সদর উপজেলার দাইনুর সীমান্তে গত বুধবার রাতে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে নিহত হয় বাংলাদেশি স্কুলশিক্ষার্থী মিনারুল ইসলাম মিনার (১৭)। ৪ দিন পর সোমবার বিকেলে তার মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সোমবার বিকেলে দাইনুর সীমান্তে বিজিবি ও বিএসএফের মধ্যে পতাকা বৈঠকের পর মরদেহ বিজিবির কাছে হস্তান্তর করা হয়। পরে স্থানীয় পুলিশ মিনারুলের পরিবারের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করে।

দিনাজপুর কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তানভিরুল ইসলাম দ্য ডেইলি স্টারকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

নিহত মিনারুল দিনাজপুর সদর উপজেলার খানপুর (ভিতরপাড়া) গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে। সে খানপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

ওসি জানান, পতাকা বৈঠকে বিজিবির পক্ষে ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের দাইনুর বিওপির নায়েক সুবেদার আকতার হোসেন নেতৃত্ব দেন।

মিনারের পরিবারের দাবি, গত বুধবার বিকেলে স্থানীয় কয়েকজনের সঙ্গে মিনার দাইনুর সীমান্তের ৩১৫ নম্বর মেইন পিলারের কাছে গেলে গুলি চালায় বিএসএফ সদস্যরা। 

গুলিবিদ্ধ হয়ে মিনার মারা যাওয়ার পর তার মরদেহ ভারতে নিয়ে যায় বিএসএফ। 

Comments