জ্বালানি তেল ব্যবসায়ীদের ধর্মঘট প্রত্যাহার

বাংলাদেশ পেট্রল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সৈয়দ সাজ্জাদুল করিম কাবুল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সারা দেশে জ্বালানি তেল ব্যবসায়ীদের ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয়েছে। 

বাংলাদেশ পেট্রল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সৈয়দ সাজ্জাদুল করিম কাবুল আজ রোববার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, 'বিপিসির সঙ্গে এ বিষয়ে আজ আমাদের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেখানে সিদ্ধান্ত হয়েছে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আমরা ধর্মঘট স্থগিত রাখব। এ সময়ের মধ্যে আমাদের দাবি মানা না হলে আবারও আন্দোলনে নামব।'

বৈঠক শেষে আয়োজিত এক প্রেস বিফ্রিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

এ ছাড়া বাংলাদেশ ট্যাংক-লরি মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির মহাসচিব শেখ ফরহাদ হোসেনও ধর্মঘট প্রত্যাহারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, কেন্দ্রীয়ভাবে ঢাকাতে এক মিটিংয়ে আজ রাতে ৮টা ৩০ মিনিটে ধর্মঘট প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

জ্বালানি তেল বিক্রির ওপর কমিশন বাড়ানোসহ ৩ দফা দাবিতে আজ রোববার সকাল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য জ্বালানি ডিপো থেকে তেল উত্তোলন ও পরিবহন বন্ধ রেখে ধর্মঘট পালন করছেন খুলনার জ্বালানি তেল ব্যবসায়ীরা।

তাদের ৩ দফা দাবির মধ্যে ছিল—জ্বালানি তেল পরিবহনকারী ট্যাংক-লরির অর্থনৈতিক জীবনকাল ৫০ বছর করা, জ্বালানি তেল বিক্রির ওপর প্রচলিত কমিশন কমপক্ষে ৭ দশমিক ৫ শতাংশ করা, জ্বালানি তেল ব্যবসায়ীরা কমিশন এজেন্ট বিধায় প্রতিশ্রুতি মোতাবেক সুস্পষ্ট গেজেট প্রকাশ করা।

বাংলাদেশ ট্যাংকলরি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ জ্বালানি তেল পরিবেশক সমিতি, খুলনা বিভাগীয় ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়ন এবং পদ্মা মেঘনা ও যমুনা ট্যাংকলরী শ্রমিক কল্যাণ সমিতি এই ধর্মঘটের ডাক দেয়। 

বাংলাদেশ জ্বালানি তেল পরিবেশক সমিতির খুলনা বিভাগীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক শেখ মুরাদ হোসেন দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'বর্তমানে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির সঙ্গে আনুপাতিক হারে জ্বালানি তেল বিক্রির কমিশন বাড়াতে হবে। তা না হলে আমরা টিকে থাকতে পারবো না।'

Comments