বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ, আ. লীগের ‘শান্তি সমাবেশ’

দেশের ১০টি বিভাগীয় সদরে বিএনপির পূর্বনির্ধারিত সমাবেশের মধ্যেই শনিবার ঢাকাসহ আরও ৫টি মহানগরে ‘শান্তি সমাবেশ’ করবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।
খুলনায় নগর ভবনের সামনের সড়কে বিএনপির সমাবেশের প্রস্তুতি (বামে) ও শিববাড়ী মোড়ে আওয়ামী লীগের সমাবেশের প্রস্তুতি (ডানে)। ছবি: হাবিবুর রহমান/স্টার

দেশের ১০টি বিভাগীয় সদরে বিএনপির পূর্বনির্ধারিত সমাবেশের মধ্যেই শনিবার ঢাকাসহ আরও ৫টি মহানগরে 'শান্তি সমাবেশ' করবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

বিএনপির সমাবেশের লক্ষ্য নির্দলীয় সরকারের অধীনে আগামী জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠানসহ ১০ দফা দাবির প্রতি সমর্থন আদায়।

ঢাকা ছাড়াও আওয়ামী লীগ সমাবেশ করবে ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম, সিলেট, খুলনা ও রংপুরে।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যরা ওইসব শহরে স্থানীয় নেতাকর্মীদের বিএনপির কর্মকাণ্ডের ওপর নজর রাখতে বলেছেন বলে দলের অভ্যন্তরীণ সূত্রে জানা গেছে।

বিএনপি নেতারা বলছেন, আওয়ামী লীগের পাল্টা কর্মসূচি এসব শহরে অপ্রয়োজনীয় উত্তেজনা সৃষ্টি করেছে এবং ক্ষমতাসীন দল বিএনপির পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচি বানচাল করতে সহিংসতা উসকে দেওয়ার চেষ্টা করছে।

ঢাকায় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে দুপুর ২টায় বিএনপির সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে এবং 'বিএনপির সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যের' নিন্দা জানাতে বিকেল ৩টার দিকে কামরাঙ্গীরচর হাসপাতাল চত্বরে সমাবেশ করবে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ।

কাজীর দেউড়ি এলাকায় বিভাগীয় সমাবেশ করবে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি। কাজীর দেউড়ি থেকে প্রায় ২ কিলোমিটার দূরে আন্দরকিল্লা মোড়ে আওয়ামী লীগের 'শান্তি সমাবেশ' অনুষ্ঠিত হবে।

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি সভাপতি শাহাদাত হোসেন দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, 'আমাদের মতো একই দিনে একই সময়ে আওয়ামী লীগ সমাবেশ করবে এটা অপ্রত্যাশিত। কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে তারাই দায়ী থাকবে।'

তবে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন ডেইলি স্টারকে বলেন, 'আওয়ামী লীগের সমাবেশের স্থান বিএনপির সমাবেশের আশেপাশে কোথাও নয় এবং এটাকে উস্কানি হিসেবে দেখার কোনো সুযোগ নেই।'

সিলেটে বিএনপির সমাবেশের এক ঘণ্টা পর বিকেল ৩টার দিকে সমাবেশ করবে মহানগর আওয়ামী লীগ।

বিএনপি এর আগে রেজিস্ট্রার অফিস চত্বরকে ভেন্যু হিসেবে নির্ধারণ করে। তবে গত বুধবার আওয়ামী লীগ একই স্থানে 'শান্তি সমাবেশ' করার ঘোষণা দেয়।

এর একদিন পর সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে স্থান পরিবর্তন করে আওয়ামী লীগ।

সিলেট বিএনপি সভাপতি আবদুল কাইয়ুম চৌধুরী ডেইলি স্টারকে বলেন, 'আমাদের শান্তিপূর্ণ সমাবেশ বানচাল করতে আওয়ামী লীগ এটা করেছে।'

তবে সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন ডেইলি স্টারকে বলেন, 'বিএনপি উন্নয়নের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির জন্য ধ্বংসাত্মক পথ অবলম্বন করেছে, জনগণকে সে বিষয়টি স্মরণ করিয়ে দিতেই আমাদের শান্তি সমাবেশ।'

খুলনা নগরীর কে ডি ঘোষ রোড এলাকায় দুপুর ২টার দিকে সমাবেশ করবে বিএনপি এবং আওয়ামী লীগ সমাবেশ করবে শিববাড়ী মোড়ে।

খুলনা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক শফিকুল আলম মনা ডেইলি স্টারকে বলেন, 'গত ২২ অক্টোবর খুলনায় বিএনপির সমাবেশ ছিল শান্তিপূর্ণ। কিন্তু এতে লোকজনকে আসতে বাধা দেয় আওয়ামী লীগ। হামলায় বিএনপির একজন কর্মীও নিহত হন... আজকের সমাবেশে বিএনপির র‌্যালি আওয়ামী লীগের ভেন্যুর আশপাশ দিয়ে গেলে আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর হামলার আশঙ্কা রয়েছে।'

তবে খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ ডেইলি স্টারকে বলেন, 'কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া খুলনায় আওয়ামী লীগ-বিএনপির মধ্যে কোনো সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেনি।'

রংপুরে গ্র্যান্ড হোটেল মোড়ে সমাবেশ করবে বিএনপি এবং গণগ্রন্থাগার চত্বরে সমাবেশ করবে আওয়ামী লীগ।

এ ছাড়াও, সকাল ১১টার দিকে জিমনেসিয়াম প্রাঙ্গণে সমাবেশ করবে ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগ এবং দুপুর ২টার দিকে পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট মাঠে সমাবেশ করবে বিএনপি।

[আমাদের চট্টগ্রাম, সিলেট, রংপুর, খুলনা এবং ময়মনসিংহ সংবাদদাতা এই প্রতিবেদন তৈরিতে সহায়তা করেছেন]

 

Comments

The Daily Star  | English

Create right conditions for Rohingya repatriation: G7

Foreign ministers from the Group of Seven (G7) countries have stressed the need to create conditions for the voluntary, safe, dignified, and sustainable return of all Rohingya refugees and displaced persons to Myanmar

2h ago