রাজনীতি

তফসিল বাতিলের আহ্বান জানিয়ে ১৪১ অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তার বিবৃতি

বুধবার এক বিবৃতিতে তারা এ আহ্বান জানান।
নির্বাচনে সিসিটিভি ক্যামেরা

বৃহত্তর জাতীয় স্বার্থে তফসিল বাতিল ও বিরোধী নেতাকর্মীদের মুক্তি দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ১৪১ জন অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা।

বুধবার এক বিবৃতিতে তারা এ আহ্বান জানান।

বিবৃতিতে অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা বলেন, `দেশের জনগণ ও গণতান্ত্রিক বিশ্বের দাবি উপেক্ষা করে সরকারি দল তথা আওয়ামী লীগের পরামর্শ ও নির্দেশনা মোতাবেক আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশন একতরফা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে দেশ ও জাতিকে একটি সংঘাতময় পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দিয়েছে। নির্বাচন কমিশন সরকারের একতরফা নির্বাচন আয়োজনে সহায়ক ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে বলে আমরা মনে করি।'

কর্মকর্তারা বলেন, 'ইতোমধ্যে নির্বাচনকে সামনে রেখে জনপ্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনকে দলীয় সরকারের ইচ্ছামতো ঢেলে সাজানো হয়েছে। এমন বাস্তবতায় দেশের জনগণ, অধিকাংশ রাজনৈতিক দল এবং গণতান্ত্রিক বিশ্বের প্রত্যাশিত অবাধ, সুষ্ঠু, গ্রহণযোগ্য এবং অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন দলীয় সরকারের অধীনে সম্ভব নয়।'

`আমরা গভীর উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার সঙ্গে লক্ষ করছি সরকার ২০১৪ ও ২০১৮ এর মতো আরও একটি একতরফা প্রহসনের নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে একের পর এক বিভিন্ন নিপীড়নমূলক ব্যবস্থা নিচ্ছে', বিবৃতিতে যোগ করা হয়।

তারা আরও বলেন, `আরও একটি বিতর্কিত ও একতরফা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে বাংলাদেশে রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সংকট আরও ঘনীভূত হবে। দেশের ও আন্তর্জাতিক মহলের উদ্বেগকে উপেক্ষা করে আরও একটি একতরফা প্রহসনের নির্বাচন অনুষ্ঠানের দিকে অগ্রসর হলে এর সকল দায়-দায়িত্ব মূলত সরকারকে বহন করতে হবে বলে আমরা মনে করি।'

বিবৃতিতে বলা হয়, 'বর্তমানে উদ্ভুত পরিস্থিতিতে অর্থবহ সংলাপের মাধ্যমে একটি দলনিরপেক্ষ নির্বাচনকালীন সরকারের অধীনে একটি অবাধ, সুষ্ঠু, অংশগ্রহণমূলক এবং গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের পথ খুঁজে বের করার জন্য আমরা ঘোষিত তফসিল বাতিল করার আহ্বান জানাচ্ছি। এ লক্ষ্যে আমরা অবিলম্বে বিরোধী রাজনৈতিক দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ ও সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের মুক্তি দিয়ে একটি সুস্থ ও অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টির উদ্যোগ গ্রহণের জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানাচ্ছি।'

বিবৃতিতে সই করেন-

 ১. এ এস এম আব্দুল হালিম, সাবেক মন্ত্রী পরিষদ সচিব

২. মো. আবদুল কাউয়ুম, সাবেক সচিব, আইজিপি

৩. মো. ইসমাইল জবিউল্লাহ, সাবেক সচিব

৪. সৈয়দ সুজাউদ্দিন আহমেদ, সাবেক সচিব

৫. মো. আব্দুর রশীদ সরকার, সাবেক সচিব

৬. আবু মো. মনিরুজ্জামান খান, সাবেক সচিব

৭. এ. এম. এম. নাছির উদ্দিন, সাবেক সচিব

৮. মো. মনিরুল ইসলাম, সাবেক সচিব

৯. মো. শরফুল আলম, সাবেক সচিব

১০. এম সিরাজ উদ্দিন, সাবেক যুগ্ম-সচিব

১১. ড. মোহাম্মদ জকরিয়া, সাবেক অতিরিক্ত সচিব, ইসি

১২. মকসুমুল হাকিম চৌধুরী, সাবেক অতিরিক্ত সচিব

১৩. মো. আবদুজ জাহের, সাবেক অতিরিক্ত সচিব

১৪. আফতাব হাসান, সাবেক অতিরিক্ত সচিব

১৫. মো. আজিজুল ইসলাম,

১৬. ইকতেদার আহমেদ, সাবেক জেলা দায়রা জজ ও রেজিস্টার জেনারেল, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট

১৭. মো. মনসুর আলম,

১৮. এ কে এম মাহফুজুল হক,

১৯. শেখ মো. সাজ্জাদ আলী,

২০. মো. মেজবাহুন্নবী,

২১. বাহারুল আলম,

২২. মোহাম্মদ মাজেদুল হক,

২৩. মো. খান সাঈদ হাসান,

২৪. মো. আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ,

২৫. মোহা. আবুল কালাম আজাদ,

২৬. এম আকবর আলী,

২৭. প্রফেসর ডা. এ জেড এম জাহীদ হোসেন,

২৮. বিজন কান্তি সরকার,

২৯. এ বি এম আব্দুস সাত্তার,

৩০. তপন চন্দ্র মজুমদার,

৩১. এ কে এম জাহাঙ্গীর,

৩২. আখতার আহমেদ,

৩৩. মো. আবদুল বারী,

৩৪. এস এম শমসের জাকারিয়া,

৩৫. মুন্সি আলাউদ্দিন আল আজাদ,

৩৬. ড. মো. আব্দুস সবুর,

৩৭. মো. আতাউল হক মোল্লা,

৩৮. এ এইচ এম মোস্তাইন বিল্লাহ,

৩৯. মো. আব্দুল খালেক,

৪০. জএম এম সুলতান মাহমুদ,

৪১. মো. ফিরোজ খান নুন,

৪২. জনাব মোঃ ওয়াছিম জাব্বার,

৪৩. মো. এমদাদুল হক,

৪৪. খন্দকার মো. মোখলেছুর রহমান,

৪৫. মো. ফেরদৌস আলম,

৪৬. মো. ফজলুল করিম,

৪৭. মো. আবু তালেব,

৪৮. মো. আমিনুল ইসলাম,

৪৯. ড. মো. ফেরদৌস হোসেন,

৫০. মো. গিয়াস উদ্দিন মোগল,

৫১. মো. আফজল হোসেন,

৫২. মো. শেফাউল করিম,

৫৩. জাহাঙ্গীর হোসেন চৌধুরী,

৫৪. শহীনুল ইসলাম,

৫৫. সৈয়দ লোকমান আহমেদ,

৫৬. এস এম মনিরুল ইসলাম,

৫৭. মোহাম্মদ হুমায়ুন কবীর,

৫৮. মো. মহিবুল হক,

৫৯. মো. ফজলুল হক,

৬০. মো. আজহারুল ইসলাম,

৬১. বশীর উদ্দীন আহমেদ,

৬২. মো. নবীউল হক মোল্যা,

৬৩. ড. নেয়ামত উল্যা ভূঁইয়া,

৬৪. মো. কামরুজ্জামান চৌধুরী,

৬৫. কাজী মেরাজ হোসেন,

৬৬. মোহাম্মদ মসিউর রহমান,

৬৭. আব্দুর রহিম মোল্লা,

৬৮. মো. শফিক আনোয়ার,

৬৯. মো. আব্দুল মান্নান,

৭০. মো. আফতাব আলী,

৭১. মো. তৌহিদুর রহমান,

৭২. মো. আব্দুল্লাহ্—আল—বাকী,

৭৩. মো. জামাল হোসেন মজুমদার,

৭৪. এ বি এম সিরাজুল হক,

৭৫. কাজী ইমদাদুল হক,

৭৬. ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন ভূঁইয়া,

৭৭. মো. জাকির হোসেন কামাল,

৭৮. মঞ্জুর মোর্শেদ চৌধুরী,

৭৯. মো. ইলিয়াস,

৮০. তপন কুমার সাহা,

৮১. জগন্নাথ দাস খোকন,

৮২. মো. আব্দুল মতিন,

৮৩. এ. কে এম ইহসানুল হক,

৮৪. ড. মো. সুরাতুজ্জামান,

৮৫. মো. তাজুল ইসলাম মিয়া,

৮৬. তালুকদার সামছুর রহমান,

৮৭. এ এম সাইফুল হাসান,

৮৮. মো. বকতিয়ার আলম,

৮৯. মো. ওবায়দুর রহমান

৯০. খান, শেখ ওমর ফারুক,

৯১. এম মাহবুব আলম,

৯২. মো. আলমগীর আলম,

৯৩. এস এম কামাল হোসেন,

৯৪. কাজী মোরতাজ আহমেদ,

৯৫. মো. দেলোয়ার হোসেন মিঞা,

৯৬. মুহম্মদ শহীদুল্যাহ্ চৌধুরী,

৯৭. মো. আব্দুর রহিম,

৯৮. মো. আলী হোসেন ফকির,

৯৯. আলী আকবর খান,

১০০. ড. মো. নাজমুল করিম খান,

১০১. মো. আব্দুল মান্নান পিপিএম,

১০২. জনাব মোহাম্মদ শোয়েব আহম্মদ,

১০৩. কর্নেল (অবঃ) মুহাম্মদ ইসহাক মিয়া,

১০৪. লে. কর্নেল (অবঃ)মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী,

১০৫. মো. সামসুল আলম,

১০৬. মো. গোলাম মোস্তফা,

১০৭. মো. শাহবুদ্দীন,

১০৮. প্রকৌশলী মো. হানিফ,

১০৯. সৈয়দ মোহাম্মদ হোসাইন,

১১০. অধ্যাপক ডা. খন্দকার জিয়াউল ইসলাম জিয়া,

১১১. মো. মহব্বত হোসেন,

১১২. মো. আখতারুল আলম,

১১৩. ডা. এ কে এম মহিউদ্দিন ভূইয়া,

১১৪. মাহফুজুল ইসলাম,

১১৫. কৃষিবিদ কাজী জাহাঙ্গীর কবির,

১১৬. জালাল উদ্দিন আহমেদ,

১১৭. গোলাম মরতোজা,

১১৮. ড. মো. জিয়াউল ইসলাম মুন্না,

১১৯. জনাব মোঃ জাকির হোসেন জামাল,

১২০. মো. সফিউল আহাদ সরদার,

১২১. এ্যাড. নূরুল ইসলাম জাহিদ,

১২২. জ তারেকুল ইসলাম (মঈন),

১২৩. গাজী মোহাম্মদ ইব্রাহীম,

১২৪. মো. হুমায়ুন কবির,

১২৫. মো. আবুল কালাম আজাদ

১২৬. মো. শরিফুল ইসলাম,

১২৭. কামরুল হোসেন,

১২৮. মাহফুজা আক্তার,

১২৯. মো. সাইফুল ইসলাম,

১৩০. মো. আব্দুল আলিম,

১৩১. কে এম তৌহিদুল ইসলাম,

১৩২. এম মোরশেদুল করিম,

১৩৩. মাহবুব আল জাহান (লিটন),

১৩৪. মনিরুজ্জামান খান,

১৩৫. সায়িদ আহমদ (সাইক্লোন),

১৩৬. মোহাম্মদ নাছির খান,

১৩৭. মোহাম্মদ হারুন আর রশিদ,

১৩৮. মো. ওয়ালিদ হোসেন,

১৩৯. মো. জাহিদুল ইসলাম সুমন,

১৪০. মো. আলিউর রেজা,

১৪১. মো. রকিব উদ্দিন।

 

Comments