বিস্ফোরণে বাঁধ ধ্বংস, রাশিয়া-ইউক্রেনের একে অপরকে দোষারোপ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ভিডিওতে দেখা গেছে কাখোভকা বাঁধের আশেপাশে বড় আকারে বিস্ফোরণ ঘটেছে। অন্যান্য ভিডিওতে  বাঁধের ধ্বংসাবশেষের মধ্য দিয়ে পানি বয়ে যেতে দেখা গেছে।
কাখোভকা বাঁধের স্যাটেলাইট ছবি। ছবি: রয়টার্স
কাখোভকা বাঁধের স্যাটেলাইট ছবি। ছবি: রয়টার্স

রুশ অধিকৃত দক্ষিণ ইউক্রেনের একটি সোভিয়েত আমলের বাঁধ ধ্বংস হয়েছে। 

আজ মঙ্গলবার বার্তাসংস্থা রয়টার্সে জানিয়েছে, ইউক্রেন ও রাশিয়া উভয়ই একে অপরকে এই বাঁধ ধ্বংসের জন্য দায়ী করেছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ভিডিওতে দেখা গেছে কাখোভকা বাঁধের আশেপাশে বড় আকারে বিস্ফোরণ ঘটেছে। অন্যান্য ভিডিওতে  বাঁধের ধ্বংসাবশেষের মধ্য দিয়ে পানি বয়ে যেতে দেখা গেছে।

এই বাঁধের মাধ্যমে রাশিয়ার দখলে থাকা ক্রিমিয়া ও ঝাপোরিঝঝিয়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রে পানি সরবরাহ করা হয়।

৩০ মিটার উঁচু ও ৩ দশমিক ২ কিলোমিটার দীর্ঘ এই বাঁধটি নিপ্রো নদীর ওপর ১৮৫৬ সালে নির্মাণ করা হয়। কাখোভকা জলবিদ্যুতকেন্দ্র প্রকল্পের অংশ হিসেবে এটি নির্মাণ করা হয়।

রুশ কর্মকর্তারা জানান, পারমাণবিক কেন্দ্রে কোনো ঝুঁকি নেই।

ইউক্রেন দাবি করেছে, রুশ সামরিক বাহিনী এই বাঁধ উড়িয়ে দিয়েছে। রুশরা এ ঘটনার জন্য ইউক্রেনকে দায়ী করেছে।

রয়টার্স কোনো পক্ষের দাবির সত্যতা যাচাই করতে পারেনি।

ইউক্রেনের জাতীয় নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষা কাউন্সিলের সচিব ওলেকসি দানিলভ জানান, প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি কাখোভাকা বাঁধ ধ্বংসের ঘটনায় একটি জরুরি বৈঠক আহ্বান করেছেন।

এই বাঁধ ধ্বংসে চলমান যুদ্ধে বা ইউক্রেনের পালটা আক্রমণে কী প্রভাব পড়বে, তা এখনো নিশ্চিত নয়।

Comments

The Daily Star  | English

288 Myanmar security personnel sent back from Bangladesh

Bangladesh this morning repatriated 288 members of Myanmar's security forces, who had crossed the border to flee the conflict between Myanmar's military junta and the Arakan Army

20m ago