অপরাধ ও বিচার

হত্যা মামলায় জামিন বাতিল, গসিকের সহকারী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের (গসিক) সহকারী প্রকৌশলী মোহাম্মদ সেলিম ওরফে আনিস হাওলাদারের জামিন বাতিল করেছে ঢাকার একটি আদালত। পাশাপাশি ২০২০ সালের মে মাসে সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেন হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।
ছবি: সংগৃহীত

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের (গসিক) সহকারী প্রকৌশলী মোহাম্মদ সেলিম ওরফে আনিস হাওলাদারের জামিন বাতিল করেছে ঢাকার একটি আদালত। পাশাপাশি ২০২০ সালের মে মাসে সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেন হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

বাদীর আইনজীবী অ্যাডভোকেট কাওসার আহমেদ জামিন বাতিলের আবেদন করলে চতুর্থ অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক (ভারপ্রাপ্ত) বিলকিস আক্তার এ আদেশ দেন।

আদেশে বিচারক বলেন, অভিযুক্ত সেলিম চলতি বছরের ২৯ জুন হাইকোর্ট থেকে ৬ মাসের জন্য জামিন পান। কিন্তু গত ৫ জুলাই সুপ্রিম কোর্টের চেম্বার বিচারপতি হাইকোর্টের জামিন দেওয়ার আদেশ ৮ সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেন।

তাই তার জামিন বাতিল করে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে বলেও জানান বিচারক।

এর আগে গত ২৭ জুলাই তুরাগ পুলিশের জমা দেওয়া তদন্ত প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে দেলোয়ারের স্ত্রী খোদেজা আক্তার মামলাটির অধিকতর তদন্তের জন্য ঢাকার একটি আদালতে আবেদন করেন।

মামলার নির্ধারিত তারিখ ২৭ জুলাই সেলিম আদালতে উপস্থিত ছিলেন না। তবে অন্য দুইজনকে আদালতে হাজির করা হয়।

শুনানি শেষে বিচারক আবেদনের ওপর শুনানির জন্য ৩০ অক্টোবর দিন ধার্য করেন।

গত বছরের ৩ মে তুরাগ থানার পরিদর্শক শেখ মফিজুল ইসলাম সেলিম ও তার দুই সহযোগী হেলাল হাওলাদার ও হাবিবুর রহমান খানকে অভিযুক্ত করে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, সহকর্মী সেলিমের সঙ্গে অবৈধ কর্মকাণ্ড নিয়ে মতবিরোধের কারণে দেলোয়ারকে হত্যা করা হয়। সেলিম বিভিন্ন ঠিকাদারের কাছ থেকে অবৈধ সুবিধা নিতেন, কিন্তু দেলোয়ার এ ধরনের অবৈধ কর্মকাণ্ডের বিরোধিতা করেন বলে অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়।

২০২০ সালের ১১ মে বিকেল ৪টার দিকে বেড়িবাঁধের কাছে উত্তরা সেক্টর-১৭ এর একটি ফাঁকা প্লট থেকে দেলোয়ারের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

খোদেজা তুরাগ থানায় অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

Comments