৩১ মার্চ পর্যন্ত ভারতীয় পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষণা, লাগামহীন দেশের বাজার

‘নতুন পেঁয়াজ বাজারে আসতে কমপক্ষে আরও দুমাস সময় লাগবে। নতুন পেঁয়াজ বাজারে এলেই দাম নিয়ন্ত্রণে আসবে।’
দিনাজপুর, হিলি স্থলবন্দর, পেঁয়াজ, পেঁয়াজ আমদানি, ভারতীয় পেঁয়াজ, আমদানি,
ফাইল ছবি

ভারত হঠাৎ করেই পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষণা দেওয়ায় যশোরাঞ্চলের বিভিন্ন বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজিতে বেড়েছে অন্তত ৫০ টাকা। একই পরিস্থিতি সারা দেশের।

বর্তমানে দেশি পেঁয়াজ ১৮০ টাকা, ভারতীয় পেঁয়াজ ১৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ফলে সাধারণ মানুষ পড়েছেন বিপাকে।

দুদিন আগেও প্রতি কেজি ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছিল ৮০-৯০ টাকায়, দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছিল প্রতিকেজি ১০০-১১০ টাকা দরে।

বেনাপোল কাস্টমস হাউস সূত্রে জানা গেছে, গত সপ্তাহেও প্রতি মেট্রিক টন পেঁয়াজের এলসি মূল্য ছিল ৮০০ মার্কিন ডলার।

ভারতে পেঁয়াজ সংকট দেখা দেওয়ায় আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে দেশটি।

আজ শনিবার সকালে বেনাপোল উদ্ভিদ সংগনিরোধ অফিস সূত্রে জানা গেছে, গত এক মাসে ভারত থেকে সাড়ে ৫০০ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। সর্বশেষ ৫ ডিসেম্বরে ৫৯ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয় রূপালী এন্টারপ্রাইজের মাধ্যমে।

গত দুদিনে ভারতে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি ও দেশি পেঁয়াজের মজুদ কম থাকার অভিযোগ করেছেন ব্যবসায়ীরা।

বেনাপোল বাজারে দেখা যায়, পাইকারি বাজারের পেঁয়াজের দাম সর্বোচ্চ ৫ হাজার ৬০০ টাকা পর্যন্ত পৌঁছে গেছে। গত বৃহস্পতিবারও পাইকারি বাজারে প্রতি মণ পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৩ হাজার থেকে ৩ হাজার ২০০ টাকায়। পেঁয়াজের বাজার লাগামহীন হয়ে পড়ায় হতাশ ব্যবসায়ী ও ক্রেতারা।

বেনাপোল বাজারে পেঁয়াজ কিনতে আসা বাবলুর রহমান বলেন, 'পেঁয়াজের বাজার এভাবে বাড়তে থাকলে আমাদের সামান্য আয়ে সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হয়। কয়েক দিন পরপরই এভাবে বাড়ছে পেঁয়াজের দাম। দুদিন আগেও ৮৫-৯০ টাকা কেজি পেঁয়াজ কিনেছি। আজ বাজারে এসে দেখি দেশি পেঁয়াজ ১৮০ টাকা, আর ভারতীয় পেঁয়াজ ১৬০ টাকা কেজি।'

তার ভাষ্য, বাজার নিয়ন্ত্রণে কোনো তদারকি না থাকায় সমস্যায় পড়ছেন ক্রেতারা। বাজার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন।

বেনাপোল বাজারের পেঁয়াজ ব্যবসায়ী মো. আপেল মাহমুদ বলেন, 'দু-তিনদিন ধরে প্রতি মণ পেয়াজ ৩ হাজার ৩০০ টাকা মূল্যে বিক্রি হচ্ছিল। সেই পেঁয়াজের মূল্য বেড়ে বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৫ হাজার ৬০০ টাকায়। অর্থাৎ কেজিতে বেড়েছে ৪৫-৫৫ টাকা। তবে পাইকারি বাজারে আমদানি কম ও ভারতীয় পেঁয়াজের অস্বাভাবিক দাম বৃদ্ধির কারণে পেঁয়াজের বাজার পরিস্থিতি অস্বাভাবিক হয়েছে।'

তিনি জানান, দাম বেড়ে যাওয়ায় তাদের বিক্রিও নেমেছে অর্ধেকে।

বেনাপোল বন্দর পরিচালক রেজাউল করিম বলেন, 'নতুন পেঁয়াজ বাজারে আসতে কমপক্ষে আরও দুমাস সময় লাগবে। নতুন পেঁয়াজ বাজারে এলেই দাম নিয়ন্ত্রণে আসবে।'

 

Comments