২ শিশুর ভবিষ্যৎ বিবেচনায়

ইমরান-নাকানোকে আদালতের বাইরে নিষ্পত্তির উপদেশ

১৬ ফেব্রুয়ারি একই বিচারক উভয় পক্ষের আইনজীবীদের উদ্যোগ নিতে বলেন, যাতে ২ শিশুর বাবা-মা আদালতের বাইরে সৌহার্দ্যপূর্ণভাবে বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য একসঙ্গে বসতে পারেন।
ইমরান-নাকানো দম্পতির ২ সন্তানের অভিভাবকত্বের রায় আগামীকাল
ইমরান ও নাকানো। ছবি: সংগৃহীত

শিশুদের ভবিষ্যৎ বিবেচনা করে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিক ইমরান শরীফ ও জাপানি নাগরিক এরিকো নাকানোকে তাদের বিষয়টি আদালতের বাইরে নিষ্পত্তি করার উপদেশ দিয়েছেন ঢাকার একটি আদালত।

২ সন্তানকে নিজ হেফাজতে রাখতে ইমরান শরীফের করা আপিল আবেদনের শুনানিকালে আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক এএইচএম হাবিবুর রহমান ভূঁইয়া এ উপদেশ দেন।

এর আগে ১৬ ফেব্রুয়ারি একই বিচারক উভয় পক্ষের আইনজীবীদের উদ্যোগ নিতে বলেন, যাতে ২ শিশুর বাবা-মা আদালতের বাইরে সৌহার্দ্যপূর্ণভাবে বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য একসঙ্গে বসতে পারেন।

বিচারক আরও বলেন, শিশুদের হেফাজতে নিয়ে আদেশ পাস করা একটি সংবেদনশীল বিষয়। একজন জাপানি নাগরিক বিষয়টির সঙ্গে সম্পর্কিত।

'২০১৬ সালের জুলাইয়ে হোলি আর্টিসান ক্যাফে হামলায় জাপানি প্রকৌশলীদের মৃত্যুতে আমাদের বড় ক্ষতি হয়েছে। এখন আমি এমন কোনো আদেশ দিতে চাই না, যা আমাদের দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করবে', বলেন বিচারক।

২ সন্তানকে নিজ হেফাজতে রাখতে ইমরানের করা আপিল আবেদন গত ১৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকার জেলা ও দায়রা জজ আদালত গ্রহণ করেন। একইসঙ্গে সেদিন পারিবারিক আদালতে ইমরানের করা মামলা খারিজের আদেশও স্থগিত করা হয়।

ইমরান শরীফ তার সন্তানদের হেফাজত চেয়ে গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে যে মামলা করেছিলেন, পারিবারিক আদালত সেটি খারিজ করে দিলে গত ২ ফেব্রুয়ারি তিনি সেই রায়ের বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ করেন।

গত ২৯ জানুয়ারি ঢাকার দ্বিতীয় সহকারী জজ ও পারিবারিক আদালতের বিচারক দুরদানা রহমান ওই ২ শিশুকে তাদের মা জাপানি নাগরিক এরিকো নাকানোর হেফাজতে থাকার নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে ওইদিন ২ শিশুকে নিজ হেফাজতে রাখতে ২০২২ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি ইমরানের করা মামলাও খারিজ করে দেন আদালত।

Comments

The Daily Star  | English

Thousands pray for rain as Bangladesh sizzles in heatwave

Thousands of Bangladeshis yesterday gathered to pray for rain in the middle of an extreme heatwave that prompted authorities to shut down schools around the country

11m ago