রাজনীতি

বিএনপির জনসভায় ১টি পটকাও ফুটেছে, প্রশ্ন তথ্যমন্ত্রীর

বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালে আওয়ামী লীগকে জনসভা করতে দেয়নি উল্লেখ করে দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, সরকার সহযোগিতা করছে, নিরাপত্তা বিধান করছে বিধায় বিএনপির সমাবেশে একটা পটকাও ফোটে না।
তথ্যমন্ত্রী
ছবি: সংগৃহীত

বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালে আওয়ামী লীগকে জনসভা করতে দেয়নি উল্লেখ করে দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, সরকার সহযোগিতা করছে, নিরাপত্তা বিধান করছে বিধায় বিএনপির সমাবেশে একটা পটকাও ফোটে না।

আজ শনিবার দুপুরে গণমাধ্যমকর্মীদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি যখন ক্ষমতায় ছিল তখন ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আমাদের সমাবেশ পণ্ড করে দেওয়া জন্য গ্রেনেড হামলা করেছিল। সিলেটেই জনসভায় বোমা হামলা করে শাহ এসএম কিবরিয়াকে হত্যা করা হয়েছিল। আহসানুল্লাহ মাস্টারের সভা হামলা করে তাকে হত্যা করা হয়েছিল। শেখ হেলালের জনসভায় হামলা করে ১ ডজন মানুষকে হত্যা করা হয়েছিল। সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের জনসভায় হামলা করে মানুষ হত্যা করা হয়েছিল, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত আহত হয়েছিলেন। আমাদের বিভিন্ন জনসভায় বোমা-গ্রেনেড হামলা হয়েছিল। তাদের সেখানে কি একটি পটকাও ফুটেছে আজ পর্যন্ত? সরকার সহযোগিতা করছে, নিরাপত্তা বিধান করছে বিধায় একটা পটকাও ফোটে না।

পরিবহন ধর্মঘট, এটা বেসরকারি সংস্থা। সেখানে বিএনপি, আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি, জাসদ-বাসদের নেতা আছে। সবাই মিলে পরিবহন মালিক-শ্রমিক সমিতি। তারা সিদ্ধান্ত নেয় তাদের নিজস্ব নানা কারণে। সবচেয়ে বড় কারণ হচ্ছে, বিএনপি যখন সমাবেশ ডাকে তখন পরিবহন শ্রমিক এবং মালিক সবাই আতঙ্কে থাকে। কারণ অতীতে ১৩-১৫ সালে বাস-ট্রাক পুড়িয়েছিল। যখনই কোনো সমাবেশ করে বাস-ট্রাকে হামলা করে। জনগণের সম্পত্তির ওপর হামলা করে। এটার সঙ্গে সরকারের কোনো সম্পর্ক নেই, বলেন তথ্যমন্ত্রী।

হাছান মাহমুদ আরও বলেন, তাদের (বিএনপি) ধন্যবাদ দেওয়া উচিত তাদের জনসভায় একটি পটকাও ফোটেনি। আমাদের তারা জনসভা করতে দেয়নি। আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের দুপাশে কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে রাখতো। সেখান থেকে আমরা বের হতে পারতাম না। রাসেল স্কয়ায়ে যখন ২০ জন নিয়ে বসতাম তখনো পুলিশি লাঠিপেটা চালানো হতো।

Comments