রাজনীতি

বিএনপি আনাড়ি খেলোয়াড়দের সঙ্গে খেলে না: কাদেরের উদ্দেশে গয়েশ্বর

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, সরকার পুলিশ ও পেটোয়া বাহিনী দিয়ে হামলা করে, বাস-ট্রাক বন্ধ করে সমাবেশকে বাধাগ্রস্ত করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু জনগণকে আটকে রাখা যায়নি, তারা ঘর থেকে বেরিয়ে এসেছেন, সমাবেশ করেছেন।
সিলেট সরকারি আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ। ছবি: আনিসুর রহমান/স্টার

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, সরকার পুলিশ ও পেটোয়া বাহিনী দিয়ে হামলা করে, বাস-ট্রাক বন্ধ করে সমাবেশকে বাধাগ্রস্ত করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু জনগণকে আটকে রাখা যায়নি, তারা ঘর থেকে বেরিয়ে এসেছেন, সমাবেশ করেছেন।

আজ শনিবার নগরের চৌহাট্টা এলাকার সিলেট সরকারি আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশে এ কথা বলেন তিনি।

গয়েশ্বর বলেন, 'বাস-ট্রাক বন্ধ করে প্রতিদিন দেশের কত কোটি টাকা ক্ষতি করা হলো, তার জবাব সরকারকে দিতে হবে।'

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়েদুল কাদেরের উদ্দেশে বিএনপির এই নেতা বলেন, 'তিনি (কাদের) বলছেন খেলা হবে। কিন্তু দরজা বন্ধ করে ঘরের মধ্যে যে খেলা, এটা ছাড়া আর কোনো খেলা তিনি জানেন না। যখন পাপিয়া-পরীমনিরা ধরা পরে তখন আওয়ামী লীগ নেতাদের বুক ধড়ফড় করে। বিএনপি আনাড়ি খেলোয়াড়দের সঙ্গে খেলে না। খেলা শিখে আসেন। নিরপেক্ষ সরকার নিয়ে খেলেন। শেখ হাসিনাও জামানত হারাবেন।'

তিনি বলেন, 'যত টাকা ঋণ করা হয়েছে, সেই টাকার সুদ দেওয়ার মতো টাকাও কোষাগারে নেই। সরকার লুটে নিয়েছে। আজকে গণতন্ত্রের অবস্থা ইলিয়াস আলীর মতো। ইলিয়াস গুম, গণতন্ত্রও গুম। আমরা ইলিয়াস আলীর মতো গণতন্ত্রকেও খুঁজছি।'

গয়েশ্বর বলেন, '১০ ডিসেম্বরের পর সরকার পতনের আন্দোলনে নামব। সাহস থাকলে ক্ষমতা ছাড়েন। জিয়াউর রহমান খুনের সঙ্গে শেখ হাসিনা জড়িত কী না, তা আমরা খুঁজে বের করব। সব গুম-খুনের বিচার হবে।'

গণসমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান বলেছেন, 'সারা বাংলাদেশে অন্যায়, অত্যাচার, জুলুম ও নির্যাতন চলছে। আজ বলতে চাই, বাংলাদেশে আর কোনো জুলুম-অত্যাচার চলবে না। আমরা দেশে আবার গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করব, যেমন করেছিলেন প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান।'

তিনি বলেন, 'বিএনপি কোনো অন্যায়কে প্রশ্রয় দেয় না। আমরা জনগণের ক্ষমতা জনগণকে ফিরিয়ে দেবো। দিনের ভোট আর রাতে করতে দেওয়া হবে না।'

সেসময় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. জাহিদ হোসেন বলেন, 'সারাদেশের মানুষ আজ জেগে উঠেছে। শেখ হাসিনার পতন হবে। মানুষের বিজয় হবে। জিনিসপত্রের দাম কমবে। নির্দলীয় সরকার প্রতিষ্ঠিত হবে।'

তিনি বলেন, 'গণতন্ত্রের জয় হলে জনগণের জয় হয়। নির্দলীয় সরকার গঠন হলে জনগণ ভোট দিতে পারবে। নির্বাচিত সরকার গঠন হলে দ্রব্যমূল্যের দাম কমবে। ইলিয়াস-দিনারসহ গুম হওয়া সবাই ফিরে আসবেন।'

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি ও নেতা-কর্মীদের হত্যার প্রতিবাদ, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন এবং খালেদা জিয়ার মুক্তি ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে বিএনপির এ গণসমাবেশ হয়েছে। গণসমাবেশ শুরু হয় সকাল ১১টায়।

  

Comments